Home / Bangla (বাংলা) (page 3)

Bangla (বাংলা)

জাভাস্ক্রিপ্ট কোড কোথায় থাকবে

তিনটি সাধারন অবস্থান রয়েছে যেখানে জাভাস্ক্রিপ্ট কোডকে রাখা যায় ।

  1. head ট্যাগ এর ভিতরে
  2. body ট্যাগ এর মধ্যে
  3. বহিঃস্থ (external) file হিসাবে

head or body এর অবস্থান পছন্দ করা খুব সাধারন। যদি আপনি চান জাভাস্ক্রিপ্ট কে কিছু event (যেমন যখন কোন ব্যবহারকারী কোন স্থানে ক্লিক করবে, event সম্বন্ধে আলোচনা করা হয়েছে) এর উপর রান করাবেন সেক্ষেত্রে আপনি জাভাস্ক্রিপ্ট কে head ট্যাগ এ রাখতে পারেন।

আবার যদি আপনি জাভাস্ক্রিপ্ট কে রান করাতে চান যখন পেজ লোড হবে (পুর্ববতি অধ্যায়ের “Hello World!” উদাহরনের মত),সেক্ষেত্রে আপনি জাভাস্ক্রিপ্ট কে body ট্যাগ এর মধ্যে রাখতে পারেন।

বহিঃস্থ (External) জাভাস্ক্রিপ্ট ফাইল এবং তাদের ব্যবহার পরবর্তি অধ্যায়ে আলোচনা করা হয়েছে ।
Head Script এর উদাহরন:

যেহেতু আমরা দেখেছি যে এক প্রকারের Script যা body tag এর মধ্যে লেখা যায়। আমরা কিছু Script লিখবো যার মাধ্যমে কিছু event সংঘটিত হবে ।যেমন ব্যবহারকারী যখন বাটনে ক্লিক করবে তখন alert box দেখাবে।

<html>

<head>

<script type="text/JavaScript">

<!--

function popup() {

alert("Hello World")

}

//-->

</script>

</head>

<body>

<input type="button" onclick="popup()" value="popup">

</body>

</html>

popup প্রদর্শন:

আমরা একটা ফাংশন তৈরী করেছি যার নাম পপআপ এবং এটাকে এইচটিএমএল ডকুমেন্ট এর head ট্যাগ এ রেখেছি ।এখন আমরা যতবারই বাটনে ক্লিক করবো ততবারই “Hello World!” নামের alert box দেখাবে। পরবর্তি অধ্যায়গুলিতে ফাংশন এবং event সম্বন্ধে বিস্তারিত আলোচনা করা হয়েছে ।

জাভাস্ক্রিপ্ট সক্রিয় করা

এ অধ্যায়ে আপনাদের দেখাবো কিভাবে জাভাস্ত্রিপ্ট ইন্টারনেট এক্সপ্লোরার,ফায়ারফক্স, এবং অপেরা তে সচল (active) করতে হয়।
জাভাস্ক্রিপ্ট কে ইন্টারনেট এক্সপ্লোরার- এ সচল করারপদ্ধতি:

Internet Explorer 6/7 এ আপনি security setting এ গিয়ে check করতে পারেন যে আপনার জাভাস্ত্রিপ্টটি কি সচল রয়েছে কিনা। নিচে জাভাস্ত্রিপ্ট সচল করার উপায় দেয়া হলো।

  1. প্রথমে Tools menu তে Click করতে হবে
  2. তারপর menu হতে Internet Options নির্বাচন করতে হবে
  3. Internet Options এর Security tab এ Click করতে হবে
  4. তারপর Custom Level বাটনে Click করে security settings এ প্রবেশ করতে হবে
  5. Scroll করে Scripting section এ যেতে হবে
  6. script সচল করা জন্য Enable বাটন Select করতে হবে
  7. প্রক্রিয়াটি সম্পন্ন করতে OK বাটনে Click করতে হবে
  8. প্রক্রিয়াটি সম্পন্ন করার জন্য Yes বাটনে Click করতে হবে

জাভাস্ক্রিপ্ট কে ফায়ারফক্স- এ সচল করারপদ্ধতি:

Firefox 2 এ আপনি Options এর Content setting এ গিয়ে check করতে পারেন যে আপনার জাভাস্ত্রিপ্টটি কি সচল রয়েছে কিনা। নিচে জাভাস্ত্রিপ্ট সচল করার উপায় দেয়া হলো।

  1. প্রথমে Tools menu তে Click করতে হবে
  2. তারপর menu হতে Options নির্বাচন করতে হবে
    1. Options এর Content tab এ Click করতে হবে
    2. নিশ্চিত করুন যে Enable JavaScript check box এ টিক দেয়া আছে কিনা
    3. প্রক্রিয়াটি সম্পন্ন করতে OK বাটনে Click করতে হবে

    জাভাস্ক্রিপ্ট কে অপেরা – তে সচল করারপদ্ধতি:

    Opera তে আপনি Preferences এর Content setting এ গিয়ে check করতে পারেন যে আপনার জাভাস্ত্রিপ্টটি কি সচল রয়েছে কিনা। নিচে জাভাস্ত্রিপ্ট সচল করার উপায় দেয়া হলো।

    1. প্রথমে Tools menu তে Click করতে হবে
    2. তারপর menu হতে Preferences নির্বাচন করতে হবে
    3. Preferences এর Advanced tab এ Click করতে হবে
    4. বাম পাশের লিস্ট item হতে Content নির্বাচন করতে হবে
    5. নিশ্চিত করুন যে Enable JavaScript check box এ টিক দেয়া আছে কিনা
    6. প্রক্রিয়াটি সম্পন্ন করতে OK বাটনে Click করতে হবে

জাভাস্ক্রিপ্ট কোড কিভাবে লিখতে হয়

তিনটি গুরুত্বপুর্ন ধাপ রয়েছে যা আপনাদের জাভাস্ক্রিপ্ট লেখার ক্ষেত্রে প্রয়োজন ।

  1. script ট্যাগ ব্যবহার করে ব্রাউজার কে বোঝাতে হবে যে আপনি জাভাস্ক্রিপ্ট ব্যবহার করছেন।
  2. কিছু জাভাস্ক্রিপ্ট কোড লিখতে হবে ।
  3. Test the script

আমাদের প্রথম ধাপ হচ্ছে

 <script>

স্ক্রিপ্ট ট্যাগ ব্যবহারের মাধ্যমে ব্রাউজার কে বোঝাতে হবে যে আমরা জাভাস্ক্রিপ্ট ব্যবহার করছি। script type হিসাবে “text/JavaScript” সেট করতে হবে। আপনারা সিএসএস এর ক্ষেত্রে দেখেছেন type হিসাবে আমরা “text/css” সেট করছি।

<html>

<body>

<script type="text/JavaScript">

<!--

document.write("Hello World!")

//-->

</script>

</body>

</html>

প্রদর্শন:

Hello world!

document.write:

আমাদের script এর শেষ ধাপ হচ্ছে ফাংশন এর ব্যবহার যার নাম document.write ।যার মাধ্যমে text, HTML অথবা ঊভয়ই লেখা যায়। আমরা এই ফাংশন এ একটা বিখ্যাত text string ব্যবহার করেছি যা “Hello World!”  নামে পরিচিত। এটি ব্রাউজার এ প্রদর্শিত হবে।
Syntax বা চিহ্ন:

উপরের জাভাস্ত্রিপ্ট কোড লক্ষ্য করলে দেখতে পাবেন যে “document.write(Hello World!)” এই statement এর শেষে কোন সেমিকোলন নেই। কারন প্রত্যেক statement এর শেষ নির্দেশ করতে জাভাস্ত্রিপ্ট এ সেমিকোলন এর প্রয়োজন নেই।

তবে আপনি যদি অভিজ্ঞ প্রোগ্রামার হয়ে থাকেন তবে সেক্ষেত্রে ব্যবহার করতে পারেন। তবে সেমিকোলন ব্যবহার করা জরুরী যখন আমরা এক লাইনে দুটি statement ( দুটি document.write statements ) লিখি।

ফ্রিল্যান্সিং কি এবং ফ্রিল্যান্সার হবার পদ্ধতি

বর্তমান সময়ে আমাদের দেশে তরুণদের কাছে সবচেয়ে আলোচিত বিষয়ের একটি হচ্ছে ফ্রিল্যান্সিং। যদিও আমাদের দেশে এখনও এ বিষয়টি নতুন, কিন্তু এরই মধ্যে অনেকে ফ্রিল্যান্সিং এর মাধ্যমে নিজেদের ভাগ্যকে সম্পূর্ণরূপে পরিবর্তন করতে সক্ষম হয়েছেন। পড়ালেখা শেষে বা পড়ালেখার সাথে সাথে ফ্রিল্যান্সিং এ গড়ে নিতে পারেন আপনার ভবিষ্যৎ ক্যারিয়ার। ফ্রিল্যান্সিং হচ্ছে মাল্টি বিলিয়ন ডলারের একটা বিশাল বাজার। উন্নত দেশগুলো কাজের মূল্য কমানোর জন্য আউটসোর্সিং করে থাকে। আমাদের পার্শবর্তী দেশ ভারত এবং পাকিস্তান সেই সুযোগটিকে খুবই ভালভাবে কাজে লাগিয়েছে। আমরাও যদি ফ্রিল্যান্সিং এর বিশাল বাজারের সামান্য অংশ কাজে লাগাতে পারি তাহলে এটি হতে পারে আমাদের অর্থনীতি মজবুত করার শক্ত হাতিয়ার।

গতানুগতিক চাকুরীর বাইরে নিজের ইচ্ছামত কাজ করার স্বাধীনতা হচ্ছে ফ্রিল্যান্সিং। ইন্টারনেটের কল্যানে এখন আপনি খুব সহজেই একজন ফ্রিল্যান্সার হিসেবে আত্মপ্রকাশ করতে পারেন। এখানে একদিকে যেরকম রয়েছে যখন ইচ্ছা তখন কাজ করার স্বাধীনতা, তেমনি রয়েছে বিভিন্নধরনের কাজ বাছাই করার স্বাধীনতা। আয়ের দিক থেকেও অনলাইন ফ্রিল্যান্সিং এ রয়েছে অভাবনীয় সম্ভাবনা। এখানে প্রতি মূহুর্তে নতুন নতুন কাজ আসছে। প্রোগ্রামিং, গ্রাফিক্স ডিজাইন, ওয়েবসাইট, গেম, 3D এনিমেশন, প্রোজেক্ট ম্যানেজমেন্ট, সফ্টওয়্যার বাগ টেস্টিং, ডাটা এন্ট্রি – এর যেকোন এক বা একাধিক ক্ষেত্রে আপনি সফলভাবে নিজেকে একজন ফ্রিল্যান্সার হিসেবে তৈরি করে নিতে পারেন। তবে প্রথমদিকে আপনাকে একটু ধ্যর্য এবং কয়েকটি বিষয় মাথায় রেখে নিজেকে প্রস্তুত করে নিতে হবে। এই প্রতিবেদনটি তাই এমনভাবে তৈরি করা হয়েছে যাতে আপনি একজন নতুন ফ্রিল্যান্সার হিসেবে নিজেকে সফলভাবে প্রকাশ করতে পারেন।

ইন্টারনেটে অনেকগুলো জনপ্রিয় ওয়েবসাইট রয়েছে যারা ফ্রিল্যান্সিং সার্ভিস দেয় যাদেরকে বলা হয় ফ্রিল্যান্স মার্কেটপ্লেস। এগুলো থেকে যেকোন একটিতে রেজিস্ট্রিশনের মাধ্যমে আপনি শুরু করতে পারেন। এসব ওয়েবসাইটে যারা কাজ জমা দেয় তাদেরকে বলা হয় Buyer বা Client এবং যারা এই কাজগুলো সম্পন্ন করে তাদেরকে বলা হয় Provider বা Coder. একটি কাজের জন্য অসংখ্য কোডাররা Bid বা আবেদন করে এবং ওই কাজটি কত টাকায় সম্পন্ন করতে পারবে তা উল্লেখ করে। এদের মধ্য থেকে ক্লায়েন্ট যাকে ইচ্ছা তাকে নির্বাচন করতে পারে। সাধারণত পূর্ব কাজের অভিজ্ঞতা, টাকার পরিমাণ এবং বিড করার সময় কোডারের মন্তব্য কোডার নির্বাচন করার ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে থাকে। কোডার নির্বাচন করার পর ক্লায়েন্ট কাজের সম্পূর্ণ টাকা ওই সাইটগুলোতে জমা করে দেয়। এর মাধ্যমে কাজ শেষ হবার পর সাথে সাথে টাকা পাবার নিশ্চয়তা থাকে। পুরো সার্ভিসের জন্য কোডারকে কাজের একটা নির্দিষ্ট অংশ ওই সাইটকে ফি বা কমিশন হিসেবে দিতে হয়। এই পরিমাণ ওয়েবসাইট এবং সার্ভিসভেদে ভিন্ন ভিন্ন (১০% থেকে ১৫%)। কয়েকটি জনপ্রিয় ফ্রিল্যান্সিং ওয়েবসাইট হচ্ছে:

www.RentACoder.com

রেন্ট-এ-কোডার এ প্রায় দুই লক্ষ কোডার রেজিস্ট্রেশন করেছে। এই সাইটে প্রতিদিনই প্রায় ২৫০০ এর উপর কাজ পাওয়া যায়। সাইটের সার্ভিস চার্জ বা কমিশন হচ্ছে প্রতিটি কাজের মোট টাকার ১৫% যা কাজ সম্পন্ন হবার পর কোডারকে পরিশোধ করতে হয়। এই প্রতিবেদনটি মূলত রেন্ট-এ-কোডার সাইটকে ভিত্তি করে লেখা হয়েছে। তবে মূল ধারনা প্রতিটি সাইটের ক্ষেত্রেই প্রায় একই।

www.GetAFreelancer.com

এই সাইটে মোট কোডার বা প্রোভাইডারের সংখ্যা হচ্ছে প্রায় সাত লক্ষ। এই সাইটেও প্রায় ২৫০০ এর উপর কাজ প্রতিদিন পাওয়া যায়। সাইটির সার্ভিস চার্জ হচ্ছে প্রতিটি কাজের মোট টাকার ১০%। তবে গোল্ড মেম্বারদের জন্য কোন সার্ভিস চার্জ নেই। গোল্ড মেম্বার হতে প্রতি মাসে আপনাকে মাত্র ১২ ডলার পরিশোধ করতে হবে। নতুন ইউজারদের জন্য এই সাইটে ট্রায়াল প্রোজেক্ট নামে একটি বিশেষ ধরনের কাজ পাওয়া যায় যাতে শুধুমাত্র নতুন কোডারাই বিড করতে পারবে। ফলে প্রথম কাজ পেতে আপনাকে খুব বেশি দিন অপেক্ষা করতে হবে না।

www.Joomlancers.com

এই সাইটে শুধুমাত্র Joomla এর কাজ পাওয়া যায়। Joomla হচ্ছে একটি ওপেনসোর্স কন্টেন্ট ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম। যারা Joomla তে পারদর্শী তারা এই সাইটে বিড করে দেখতে পারেন। এখানে প্রায় ৫৫০০ ফ্রিল্যান্সার রেজিস্ট্রেশন করেছে আর প্রতিদিন প্রায় ১৫০ টি কাজ পাওয়া যায়। এই সাইটে কমিশন হিসেবে প্রতিটি কাজের ১০% টাকা কোডারকে পরিশোধ করতে হবে। এই সাইটেও আপনি গোল্ড মেম্বার হতে পারবেন। গোল্ড মেম্বার হতে হলে আপনাকে প্রতি মাসে ৫০ ডলার প্রদান করতে হবে।

www.oDesk.com

এক সাইটের ফিচার উপরে উল্লেখিত সাইটগুলো থেকে সম্পূর্ণ আলাদা। এখানে প্রোভাইডারকে ঘন্টা হিসেবে কাজের জন্য অর্থ প্রদান করা হয়। ক্লায়েন্ট আপনাকে সম্পূর্ণ প্রজেক্টের জন্য বা একটি নির্দিষ্ট সময়ের জন্য (কয়েক সপ্তাহ বা কয়েক মাস এর জন্য) নিয়োগ করতে পারে। রেজিষ্ট্রেশন করার সময় প্রতি ঘন্টায় আপনার কাজের মূল্য উল্লেখ করে দিতে হবে। কাজ শেষে আপনি যত ঘন্টা কাজ করেছেন ঠিক ততটুকু পরিমাণ টাকা ক্লায়েন্ট আপনাকে প্রদান করবে। কাজ করার মূহুর্তে আপনার ব্যয়কৃত সময় নির্ধারণ করার জন্য আপনাকে একটি সফ্টওয়্যার চালু রাখতে হবে, যা একটি নির্দিষ্ট সময় পরপর আপনার ডেস্কটপের স্ক্রিসশট এবং অন্যান্য তথ্য ক্লায়েন্টের কাছে পাঠাবে। ফলে ওই সময় আপনি কাজ করছেন কিনা ক্লায়েন্ট সহজেই নির্ধারণ করতে পারবে। তবে অন্য সাইটগুলোর মত এখানেও অনেক কাজ পাওয়া যায় যেখানে সম্পূর্ণ প্রজেক্টের জন্য একটি নির্দিষ্ট পরিমাণ অর্থ প্রদান করা হয়। এই সাইটে প্রতি কাজের জন্য ১০% টাকা কমিশন হিসেবে প্রদান করতে হয়। যেহেতু বেশিরভাগ কাজ ঘন্টা হিসেবে প্রদান করা হয় তাই অন্য সাইটগুলোর তুলনায় এই সাইট থেকে অনেক বেশি পরিমাণে আয় করা সম্ভব।

68 Other Freelance Jobs Sites to Check Out

Need more than a couple of options to land your next freelance client? Well, don’t worry: I’ve got you covered. After a bit of research and online digging, I’ve come across 68 more freelancing sites and job boards for you to find the freelance jobs of your dreams.

A Bit for Everyone:

For Writers and Editors:

For Designers and Programmers: